আপনি যদি কোনও নতুন ব্যবসায় শুরু করার পরিকল্পনা করছেন, তাহলে তার সম্পর্কে ভালোমতো জেনে নেওয়া প্রয়োজন ৷ আপনাকে এমন এক ধরনের ব্যবসা সম্পর্কে তথ্য দেওয়া হচ্ছে, যা শুরু করলে প্রতিদিন আপনি ৪০০০ টাকা করে রোজগার করতে পারেন ৷ অর্থাৎ মাসে লাখ টাকা পর্যন্ত আয় ৷

এই ব্যবসা হল কলার চিপস তৈরির ব্যবসা ৷ কলার চিপস স্বাস্থ্যের জন্য ভালো ৷ আলুর চিপস থেকে কলার চিপস খাওয়া অনেক বেশি ভালো ৷ বাজারে এর চাহিদাও প্রচুর ৷ তাই ব্যবসায় হবে ভালো মতোই। কলার চিপসের মার্কেট সাইজ ছোট ৷ তাই কোনও বড় ব্র্যান্ডেড সংস্থা এই চিপস তৈরি করে না ৷

আরও পড়ুন

আমেরিকার প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বেতন কত জানেন কি?

পুরুষের টাক পড়ার কারণ ও করণীয়

এত সুবিধা, তবু কমছে টেলিফোন গ্রাহক

রংমিস্ত্রীর প্রেমে পড়ে গেলেন সারিকা সাবরিন

কালার চিপস তৈরি করতে যেসব উপাদান প্রয়োজন?

১. কলা ধোওয়ার জন্য ট্যাঙ্ক এবং কলা ছোলার জন্য মেশিন

২. কলাকে পাতলা পাতলা টুকরো করে কাটার জন্য মেশিন

৩. টুকরোগুলিকে নিয়ে এরপর ফ্রাই করার মেশিন

৪. মশলাপাতি মেশানোর মেশিন

৫. পাউচ প্রিন্টিং মেশিন

এই চিপস তৈরির জন্য বিভিন্ন ধরনের মেশিন লাগে, এই মেশিনগুলি রাখার জন্য আপনার কমপক্ষে ৪০০০-৫০০০ বর্গ ফুট জায়গার দরকার পড়বে ৷ এই মেশিন ২৮ থেকে ৫০ হাজার টাকার মধ্যে পেয়ে যাবেন ৷ কাঁচামাল হিসেবে কাঁচা কলা, নুন, তেল এবং অন্যান্য মশলা লাগে।

৫০ কেজি চিপস তৈরির জন্য কমপক্ষে ১২০ কেজি কাঁচা কলা লাগবে যা ১০০০ টাকায় পেয়ে যাবেন, ১২ থেকে ১৫ লিটার তেল লাগবে এই চিপস তৈরি করতে।
চিপস ফায়ার মেশিন চালাতে ১ ঘণ্টায় ১০ থেকে ১১ লিটার ডিজেল প্রয়োজন হয়। লবণ এবং অন্যান্য মসলা দেড়শ টাকায় থেকে একটু বেশি খরচ হতে পারে।

তবে স্বল্প পরিমাণ খরচেই ৫০ কেজির বেশি চিপস উৎপাদন করতে পারবেন। প্রতি কেজিতে ১০ টাকা লাভ হলে দিনে ৪০০০ টাকা সহজে আয় করতে পারবেন, অর্থাৎ মাসে আপনার সংস্থা ২৫ দিনও কাজ করলে আপনি ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন ৷

Leave a Reply

Your email address will not be published.