নাটোরে অবস্থিত গুরুদাস পুরে ৬ মাসের প্রেমের মধ্যেই একাধিকবার শারীরিক সম্পর্কে মেতে উঠে প্রেমিক প্রেমিকা । তার পর বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাসার সামনে অনশনে বসেছে সেই কিশোরী । মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে ।

প্রেমিক মমিন আলী নাজির পুর এলাকার হামিদ আলীর বড়ো ছেলে । তার প্রেমিকার বাড়ি তাদের পাশের উপজেলা সিংড়া উপজেলার চামারি এলাকায় । তার সেই প্রেমিকা এই বছরে এসএসসি পরীক্ষার্থী ।

স্থানীয় ভাবে জানা গেছে, মমিন আলীর সাথে ঐ কিশোরীর আনুমানিক প্রায় ৬ মাস আগে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে । এরই জেরে বিয়ের কথা বলে তারা একাধিকবার শারীরিক সম্পর্কে করেছেন । তারপর থেকে ঐ কিশোরী বিয়ের কথা বললে বিভিন্ন অজু হাতে সময় পর করতে করতে থাকেন মমিন । এ কারণে মঙ্গলবার বিকেলে মমিনের বাসায় হাজির হয় তার সেই প্রেমিকা ।

স্থানীয়রা জানায়, মমিনের পরিবার ঐ কিশোরী কে মারধর করে । শেষে গলা ধাক্কা দিয়ে রাস্তায় ফেলে দেয় । এরপর মমিন সহ সবাই বাসায় তালা দিয়ে পালিয়ে যায় । পরে বাড়ির গেটের সামনে অনশন শুরু করলে ভুক্ত ভোগীকে আশ্রয় দেন তাদের একজন প্রতিবেশী ।

ভুক্ত ভোগী কিশোরী বলেন , মমিন আমাকে বিয়ের কথা বলে অনেকবারই শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করেছে । এখন তাকে আমি যখন বিয়ের কথা বললাম তখন সে নানা অজু হাতে বারবার এড়িয়ে যায় । সে যদি আমাকে বিয়ে না করলে তাহলে আমার আত্মহত্যা ছাড়া আর কোনো উপায় থাকবে না ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.