পুরো পৃথিবীতে সব চাইতে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক । কিন্তু এখন নাম পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফেসবুক । এ নিয়ে পুরো পৃথিবীতে চলছে ব্যাপক গুঞ্জন ।

ফেসবুক এর একটি সূত্রের মাধ্যমে জানা যায় আন্তর্জাতিক প্রযুক্তি মিডিয়া গুলো জানিয়েছে আগামী সপ্তাহতেই নতুন নাম ঘোষণা করা হতে পারে ।

ফেসবুকের কোনো অফিসিয়াল ঘোষণা আসার আগেই অনেকেই ফেসবুকের নতুন নতুন নাম দিচ্ছেন তাদের মত । যদিও এ প্রস্তাবের সব চাইতে বেশির ভাগ তারা করেছেন ফেসবুকের প্রতিদ্বন্দ্বী মাধ্যম টুইটারে গিয়ে ।

অনেকে বলছেন, ফেসবুক এর নাম সংক্ষিপ্ত করে ‘FB’ করা হোক । কারণ অনেকেই এ নামে ফেসবুকে উল্লেখ করে ডাকেন ফেসবুক কে অনেক আগে থেকেই । আবার ফেসবুকের সর্ব প্রথম নাম যা ছিল ‘ THE FACEBOOK’ করার দাবিও করেছে অনেকে ।

অন্য দিকে, মেটা ভার্সের এক আলোচনা ফেসবুকের নতুন একটি নাম প্রস্তাব করেছে তারা । ফেসবুকের বিকল্প নাম হিসাবে তারা নতুন নাম ‘মেটা’ হতে পারে বলে ওই আলোচনা সভায় উল্লেখ হয়েছে।

তবে এটির সত্যতা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ ছাড়া বুকফেস, ফেসগ্রাম, ফেক্টাগ্রাম, ফেসটক এবং ওয়ার্ল্ডচেঞ্জার নামটিও আলোচনায় এসেছে।

কিন্তু ফেসবুক কেন এতটা তড়িঘড়ি করে নাম বদলাতে চাইবে? সে প্রশ্নের উত্তরে শোনা যাচ্ছে, তাদের নামে যে দুর্নাম আছে তাই ঘোচাতে নাম বদলে দিতে চাইছে ফেসবুক।

প্রতিষ্ঠানটির সাবেক কর্মী ফ্রান্সেস হাউগেনের বক্তব্যে এমনটাই বোঝা যাচ্ছে। মার্কিন কংগ্রেসে তিনি বলেছেন, ফেসবুক সব সময় মানুষের ভালোর চেয়ে মুনাফায় গুরুত্ব দিয়েছে, শিশু-কিশোরদের ক্ষতি করছে জেনেও ব্যবস্থা নেয়নি, গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় বাধা দিয়েছে। এক প্রতিবেদনে সম্ভাব্য নাম হিসাবে ‘হরাইজন’-এর উল্লেখ পাওয়া যায়। বেশ আগে থেকেই এ নামে একটি ভার্চুয়াল রিয়েলিটি প্ল্যাটফর্ম তৈরিতে কাজ করছে ফেসবুক, যা মেটাভার্সের ধারণার সঙ্গেও মিলে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.